আজ বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০২:১৬ অপরাহ্

শিরোনাম

পশ্চিমবঙ্গে একুশের বিধানসভা ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রীর লড়াইয়ে আপাতত এগিয়ে রয়েছেন তৃণমূল প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সি ভোটারের তৃতীয় পর্যায়ের জনমত সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমন তথ্য। সমীক্ষা বলছে, পশ্চিমবাংলার ৫২ শতাংশ মানুষ চাইছেন পশ্চিমবাংলায় মুখ্যমন্ত্রী হোন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাদের প্রথম জনমত সমীক্ষায় পশ্চিমবাংলায় মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চেয়েছিলেন ৪৯ শতাংশ মানুষ।

এরপর দ্বিতীয় জনমত সমীক্ষায় ৫৫ শতাংশ মানুষ মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পক্ষে রায় দিয়েছিলেন। তবে তৃতীয় পর্যায়ের সমীক্ষায় সেই জনপ্রিয়তার হার কিছুটা হলেও কমেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পক্ষে। পাশাপাশি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিকল্প হিসেবে সি ভোটারের জনমত সমীক্ষায় পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নাম উঠে এসেছে পশ্চিমবাংলায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের নাম। দিলীপ ঘোষকে মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে চেয়েছেন ২৭ শতাংশ মানুষ।

তবে সি ভোটারের প্রথম ও দ্বিতীয় জনমত সমীক্ষায় দিলীপ ঘোষ পেয়েছিলেন যথাক্রমে ১৯ শতাংশ ও ২৫ শতাংশ মানুষের সমর্থন। এরপর পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রীত্বের দৌড়ে নাম উঠে এসেছে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের নাম। সি ভোটারের তৃতীয় পর্যায়ের জনমত সমীক্ষায় মুকুল রায় পেয়েছেন ৯ শতাংশ মানুষের সমর্থন। এর আগে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের সমীক্ষায় মুকুল রায় পেয়েছিলেন যথাক্রমে ৭ শতাংশ ও ৯ শতাংশ সমর্থন।

এরপর পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী দৌড়ে রয়েছেন সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তীর নাম। তিনি সি ভোটারের তৃতীয় পর্যায়ে পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার ক্ষেত্রে পেয়েছেন ৩ শতাংশ মানুষের সমর্থন। প্রথম পর্যায়ে সুজন চক্রবর্তী পেয়েছিলেন ৪ শতাংশ সমর্থন এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে পেয়েছিলেন ৩ শতাংশ মানুষের সমর্থন। এরপরেই পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রীর দৌড়ে নাম রয়েছে কংগ্রেস নেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর।

সি ভোটারের তৃতীয় পর্যায়ের সমীক্ষায় অধীর রঞ্জন চৌধুরী পেয়েছেন ৩ শতাংশ মানুষের সমর্থন। এর আগে প্রথম পর্যায়ের সমীক্ষায় তিনি পেয়েছিলেন ৩ শতাংশ মানুষের সমর্থন, এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে পেয়েছিলেন ২ শতাংশ মানুষের সমর্থন।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top