আজ শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৯:১২ পূর্বাহ্ন


 

নিজস্ব প্রতিনিধি
কক্সবাজর উত্তর বন বিভাগের অন্তর্গত ফুলছড়ি রেঞ্জের আওতাধীন রাজঘাট বন বিট টা কার ? বন‌বিভা‌গের এই বিট‌টি কি উ‌দ্যেশ্যে স্থাপিত ক‌রে‌ছে ? প্রশ্ন এলকার সাধরণ মানুষের।
কিছু অসাধু বন‌বিটের স্টাফ সেলিম মুন্সি ও হেডম্যান সহ কয়েক জন ভিলেজার মিলে, বিক্রয় করে যাচ্ছে বন‌বিট এ‌রিয়ার রিজার্ভ বন ভূমি।

কিছু‌দিন আ‌গে স্থানীয় তৈয়বা (প্রকাশ ঘুরানিকে) মোটা টাকার বিনিময়ে সরকা‌রি রিজার্ভ ভূ‌মি বি‌ক্রি ক‌রে বি‌টের স্টাফ, সেলিম মুন্সি হেডম‌্যান ও ভি‌লেজার চক্র। তা‌কে ঘর বান্দার সুযোগ করে দিয়েছিল স্বার্থবাদিরা। তা স্থানীয় কয়েক টা পত্রিকায় প্রতিবেদন হয়েছিল।

স্থানীয়রা মনে করেন ভিলেজারেরা বন বিভাগকে সহযোগীতা করার কারণে বসতি ভিটা ভোগ করতে পারে এক একর ও চাষি জমি ভোগ করতে পারে দুই একর। কিন্তু রাজঘাট বিটের টিলায় দেখা যায় ব্যতিক্রম। মৃত ইউচুপ আলী ভিলেজারের ছেলের নুরুল হকের দখলে প্রায় সাত গুণ বেশি ! উল্লেখ্য বিটের পূর্ব সাইডে একশ গজের ভিতর নুরুল হকের মা ও ছোট ভাইয়েরা বিল্ডিং করে বসত করে আসছে দ্বীর্ঘ দিন ধ‌রে। বিটের উত্তর পাশে নুরুল হকের বোন রিনা আক্তারের বসত বাড়ি। তার পশ্চিম পাশে নুরুল হকের বসত বাড়ি।তিনি ঐ রিজার্ভ জায়গায় তার শ‌্যালক বেলাল ও জসিম কেও কিছু বিক্রয় করে, তারা সবাই বাড়ি ঘর করে বসত করে আসতে‌ছে। পশ্চিম সাইডে একটু খালি ছিল তা এখন ঘর নির্মা‌নেনর কাজ চলতেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভিলেজার জানায় বিট অফিসের এ‌রিয়ায় কিছু সুবিধাবাদী চক্ররা ঐ ভিটা জমি বিক্রয় করেছে বলে জানা গেছে। বন‌বিটের দায়িত্বরত কর্মকর্তা হাচানের সা‌থে ফো‌নে কথা হ‌লে, সে তাৎক্ষ‌নিক কিছু বল‌তে রা‌জি হয়‌নি।

সু‌বিধাবাদী নানা কৌশ‌লে চক্রটি বন বিটটা দখল ক‌রে আ‌ছে। এলাকার সচেতন মহলের দাবী করেন, বন বিভাগের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের কাছে , রাজঘাট বন বিটটা যেন দখলবাজদের হাত থেকে যে‌নো রক্ষা পায়। তা তদন্ত করে কার্যকরী পদেক্ষপ নেওয়ার আহবান জানান।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top