আজ সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ০১:৩৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

অনলাইন ডেস্ক:

আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া কেরাণীহাটে হঠাৎ জেগে ওঠে ন্যাশনাল বিল্ডার্স নামকপ্রতিষ্ঠান হোটেল আল- ঈশানের পার্শ্বে “ন্যাশনাল টাওয়ার ” নামে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, উপজেলার কেরানীহাট এলাকায় হোটেল আল-ঈশানের পাশে আরএস ১০৯৩ দাগের ৪ শতক জমি কিনে তার সাথে অন্য একজনের ৬ শতক জমি জোরপূর্বক দখলে নিয়ে ন্যাশনাল টাওয়ার নামের একটি স্থাপনা তৈরি করছে কতিপয় ভূমিদস্যু।

এ বিষয়ে সাতকানিয়া সহকারি জজ আদালতে ১০৪/১৮ এবং হাইকোর্টে ১৮৫৬/০৮ মামলা বিচারাধীন রয়েছে।কিন্তু মামলা চলা অবস্থায় বিরোধপূর্ণ ওই জায়গায় নির্মাণ কাজ অব্যাহত রাখায় সাতকানিয়া সহকারি জজ আদালতের এডভোকেট কমিশনার আফরোজা হাছনা চৌধুরি (সুমি) আদালতে একটি স্থানীয় পরিদর্শন প্রতিবেদন দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ওই জমির ওপর স্থাপনা নির্মাণের নিষেধাজ্ঞা জারি চেয়ে আদালতে আবেদন করেন ভুক্তভোগীরা।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ওই জমির ওপর স্থিতাবস্থা জারি করেন আদালত। তবে এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওই জমিতে নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে ভূমিদস্যুরা। ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্য মহি উদ্দিন মুহিত জানান, কেরাণীহাটে হঠাৎ জেগে ওঠা ন্যাশনাল টাওয়ার নামক প্রতিষ্ঠানটি অবৈধভাবে তৈরি করা হচ্ছে। তারা মোহাম্মদ ইউচুপ, পিতাঃ মরহুম বদর রহমান থেকে ০১ শতক, ফাতেমা খাতুন, স্বামীঃ মোহাম্মদ ইউচুপ থেকে ০১ শতক, নুরুল হোসেন, পিতাঃ মরহুম আবদুল ছোবহান থেকে ০১ শতক, খাইর আহমদ, পিতাঃ নুরুল হোসেন থেকে ০১ শতক সর্বমোট ০৪ শতক জমি ক্রয় করে আমার পৈত্রিক ০৬ শতক সহ দখলে নিয়ে মোট ১০ শতক জায়গার উপর অবৈধ স্থাপনাটি আদালতের মামলা চলাকালীন অবস্থায় নির্মাণ করেন।

আমাদের আরএস- ১০৯৩ নং খতিয়ানের ৫৪৪৯, বি,এস- ৪৫৭ নং খতিয়ানের ২৯৭৫ এবং নামজারি ৯৭২৬। উক্ত জায়গাটিতে সাতকানিয়া সহকারি জজ আদালতে ১০৪/১৮ এবং মহামান্য হাইকোর্টে ১৮৫৬/০৮ নং মামলাটি বিচারাধীন রয়েছে।উক্ত ন্যাশনাল বিল্ডার্স নামক সিন্ডিকেটটি আইন অমান্য করে রাতের আধাঁরে উক্ত ভবনটি নিমার্ণ করে যা আইনত অবৈধ। আদালতে মামলা চলা অবস্থায় ওই বিল্ডিংটি নিমার্ণ করা হয় এই মর্মে আমাদের সাতকানিয়া সহকারি জজ আদালতের একটি স্থানীয় পরিদর্শন প্রতিবেদন বিগত ১৩/০৯/১৮ ইং তারিখে দেন এডভোকেট আফরোজা হাছনা চৌধুরি (সুমি)। তিনি বলেন, উক্ত মামলায় বাদীপক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে মাননীয় আদালত বিগত ২৭/২/২০২০ ইং status-quo আকারে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করেন। যা বলবৎ আছে।

এ ব্যাপারে ন্যাশনাল বিল্ডার্সের কারও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top