আজ রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

নিজস্ব ডেস্কঃ  চীনের উহান শহরে করোনা ভাইরাস আতঙ্কে টানা ৬ দিন ধরে গৃহবন্দী অবস্থায় রয়েছেন উচ্চতর ডিগ্রি নিতে যাওয়া বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি এমএম কাইয়ুমসহ প্রায় ৪শ’ বাংলাদেশি। গত ৬ দিন ধরে বাসা থেকে বের হতে পারছেন না তারা। গত ৪ দিন ধরে শুধু সাদা ভাত খেয়ে দিন কেটেছে তাদের। রবিবার তাদের সাদা ভাত খাওয়ার উপকরণও শেষ হয়ে যায়।

এখন শুধু তালাবদ্ধ বাসায় রয়েছে শুকনা খাবার। তাও শেষ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

চীনে কিভাবে আগামী দিনগুলো বেঁচে থাকবেন সেই দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তিনিসহ আশপাশে থাকা বাংলাদেশিরা।

রবিবার রাতে মুঠোফোনে এমএ কাইয়ুম বলেন, খুব খারাপ অবস্থায় আছি। বাসার সব খাবার শেষ। বাসা থেকে কোথাও বের হওয়া যাচ্ছে না। সব তালাবদ্ধ। যানবাহন-বিমান চলাচলও বন্ধ।

কিছু সুপার শপ খোলা থাকলেও হোটেল রেস্তোরা বন্ধ। সুপারশপে শুকনা খাবার পাওয়া গেলেও সেগুলো শিশুদের খাওয়ানো যাচ্ছে না। সুপারশপগুলোতে দুধ-রুটি-ডিমও শেষ। বিস্কুটই তাদের বাঁচার একমাত্র অবলম্বন। যা শিশুদের খাওয়ানো যাচ্ছে না। তার শিশু সন্তানকে দুই দিন ধরে কোন খাবার দিতে পারছেন না। তার মতো বহু বাংলাদেশিই সেখানে পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন। এসব পরিবারে যাদের শিশু রয়েছে তারা পড়েছেন চরম বেকায়দায়।

এভাবে ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয়ের মধ্যে রয়েছেন চীনের উহান শহরে আটকে পড়া বাংলাদেশিরা। তিনি আরও বলেন, চীন সরকার ১৪ দিনের অবরোধ জারি করেছে। এর মধ্যে মাত্র ৪দিন কেটেছে। এতেই খাবার শেষ। ১৪দিন পর চীন সরকার পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে। বাকি দিনগুলো কি করবেন সেই দুশ্চিন্তা ভর করছে তাদের। বর্তমান পরিস্থিতিতে তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করার জন্য সরকারের কাছে আকুল মিনতি করেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এমএ কাইয়ুম।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top