আজ রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৪৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

নিজস্ব প্রতিবেদক : 

বিএনপির আন্দোলন কি আদালতের বিরুদ্ধে বলে প্রশ্ন রেখেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আগামী ২০-২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে মঞ্চ নির্মাণ ও আয়োজন পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ প্রশ্ন রাখেন।

৫ ডিসেম্বর খালেদার জামিন না হলে বিএনপির লাগাতার আন্দোলনের ডাক- এ বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘৫ ডিসেম্বর বেগম খালেদা জিয়ার জামিন না হলে আন্দোলনটা কার বিরুদ্ধে? আন্দোলনটা কি আদালতের বিরুদ্ধে? কারণ, জামিন দেয়ার এখতিয়ার তো আদালতের, জামিন দেয়ার এখতিয়ার সরকারের নয়। তাহলে তারা আদালতের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামবে-সেটিই তো মনে হয়।’

তাদের এ বক্তব্যের মাধ্যমে এটিই প্রমাণিত হয়, তারা আইন মানে না, আদালত মানে না, দেশের বিচার মানে না’ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘যদি বিচার না মানে, আইন না মানে, আদালত না মানে এবং আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে যদি তারা রাজপথে নামে, আমি মনে করি তা আদালত অবমাননা এবং সেক্ষেত্রে আদালত স্বপ্রণোদিত হয়ে কিছু করে কি না সেটিই দেখার বিষয়।’

আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রসঙ্গে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সম্মেলন শুধু আওয়ামী লীগের ক্ষেত্রে নয়, এটি সমগ্র রাজনীতির ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে প্রাণ সঞ্চার হয় এবং নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসে।’

ইতিহাসের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, “১৯৬৬ সালে যখন আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছিল, সেই সম্মেলনের সংগীত ছিল ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’, যেটি পরবর্তীতে আমাদের জাতীয় সংগীত হয়েছে। সুতরাং, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সম্মেলনে দেশ ও জাতিকে এগিয়ে নিয়ে যাবার ও সমাজ পরিবর্তনের দিক-নির্দেশনা থাকে।”

আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক বলেন, ‘আগামী ২০ এবং ২১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যে ২১তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, আজ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণের পথে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের অভিযাত্রায় বাংলাদেশের অদ্যম অগ্রগতিকে আরও বেগবান করার জন্য, জিয়াউর রহমান, এরশাদ, খালেদা জিয়ার দুর্বৃত্তায়ন ও বণিকায়ন থেকে রাজনীতিকে পরিশুদ্ধ করার ক্ষেত্রে একটি মাইলফলক হয়ে থাকবে।’

এসময় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, অসীম কুমার উকিল, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top