আজ রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৩:০৮ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

নরসিংদী প্রতিনিধি

নরসিংদীর পলাশে চুরির অপবাদ দিয়ে আ. আহাদ খান (৬৬) নামে এক বৃদ্ধকে নির্যাতনের অভিযোগের ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করার পর থেকে আসামীদের ভয়ে গ্রামছাড়া ছিলো বৃদ্ধ দম্পত্তি। এ নিয়ে গত ১০ নভেম্বর (রোববার) নরসিংদী বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় “পলাশে চুরির অপবাদে বৃদ্ধকে নির্যাতন; ইউপি সদস্য সহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে পরিবার” শিরোনামে খবর প্রকাশের পর বিষয়টি নজরে আসে নরসিংদী পুলিশ সুপার (এসপি) প্রলয় কুমার জোয়ারদারের।

পরে তিনি তাৎক্ষণিক পলাশ থানা পুলিশকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিলে থানা পুলিশ ওই বৃদ্ধ দম্পত্তিকে খুঁজে বের করেন। পরে সোমবার (১১ নভেম্বর) দুপুরে থানা পুলিশ ওই বৃদ্ধ দম্পত্তিকে তাদের নিজ বাড়ী চরসিন্দুর ইউনিয়নের মালিতা গ্রামে নিয়ে যান।

এ বিষয়ে পলাশ থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন জানান, মিডিয়ায় খবর প্রকাশের পর বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। পরে ওই বৃদ্ধ দম্পত্তিকে খুঁজে বের করে তাদের নিজ বাড়িতে ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, ওই বৃদ্ধ দম্পত্তি যেনো তাদের নিজ বাড়ীতে বহাল তবিয়তে থাকতে পারে এবং বিরোধীরা যাতে কোনপ্রকার উত্যাক্ত করতে না পারে সে বিষয়েও পুলিশি তদারকি অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, পলাশ উপজেলার চরসিন্দুর ইউনিয়নের মালিতা গ্রামের ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম ওই বৃদ্ধ দম্পত্তির সম্পত্তি হাতিয়ে নেয়ার পায়তারায় লিপ্ত ছিল দীর্ঘদিন ধরে। এর অংশ হিসেবে সে বৃদ্ধ দম্পত্তিকে জমি বিক্রি করে দিতে বলে। জমি বিক্রি করতে রাজি না হওয়ায় চুরির অপবাদ দিয়ে বিকাল ৪ টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত অমানবিক নির্যাতন চালায় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ ১৪ জন অভিযুক্তরা।

এ ঘটনায় ওই বৃদ্ধ দম্পত্তি আদালতে মামলা করার পর আসামীদের প্রাণ-নাশের হুমকির কারণে আড়াই মাস ধরে গ্রামছাড়া ছিলেন।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top