আজ রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৪২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম

রাজধানীর উত্তরায় একটি ফ্লাট থেকে বৈশাখী নামের ১২ বছর বয়সী শিশু গৃহকর্মীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনা জানাজানি হলে, শিশুটিকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগে ওই ভবন ঘিরে বিক্ষোভ করেন এলাকাবাসী। পরে অতিরিক্ত পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়। মঙ্গলবার বিকেলে উত্তরা ৩ নম্বর সেক্টরের ১৮ নম্বর সড়কের ৫ নম্বর ভবনের ছয়তলায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা রিফাত ফেরদৌসের বাসায় কাজ করত বৈশাখী। ওই বাসায় এক শিশু সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে থাকেন রিফাত।

পুলিশের উত্তরা জোনের সহকারী কমিশনার কামরুজ্জামান জানান, রিফাত পুলিশকে খবর দিলে বাসায় গিয়ে একটি কক্ষের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে জানালায় ঝুলন্ত অবস্থায় বৈশাখীর মরদেহ পাওয়া যায়।

রিফাত ও তার স্ত্রীর বরাত দিয়ে তিনি বলেন, ছুটির দিন হওয়ায় তারা দেরি করে ঘুম থেকে উঠে দেখে পাশের ঘরের দরজা ভেতর থেকে লাগানো এবং গৃহপরিচারিকা নেই। অনেক ডাকাডাকির পরেও দরজা না খোলায় পুলিশকে খবর দেন গৃহকর্তা।

বৈশাখীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে তার আত্মীয়-স্বজন ছুটে আসে। মেয়েটিকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন তারা। এলাকার লোকজনও তাদের সঙ্গে যোগ দেয়, বাসার সামনে বিভিন্ন পরিত্যক্ত জিনিসপত্র জড়ো করে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে ওই ভবনের নিচতলা থেকে সাইকেল ও আসবাব নিয়ে আগুনে দেওয়া হয়। আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা গেলেও সেখানে তাদের বাধা দেন বিক্ষোভকারীরা।

স্থানীয়রা জানান, বৈশাখী দুই মাস আগে এই বাসায় কাজ নেয়। কয়েক দিন আগে তার দাদি মারা গেলে সে গ্রামের বাড়ি নওগাঁ যায়। সোমবার ঢাকা ফিরলে তার মা তাকে ওই বাসায় পৌঁছে দেয়।

এদিকে বিক্ষোভের এক পর্যায়ে ওই বাড়ির দিকে ইট-পাটকেল ছোড়েন বিক্ষুব্ধরা। এক পর্যায়ে ধাওয়া দিয়ে তাদের সরিয়ে দেয় অতিরিক্ত পুলিশ। সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাসা থেকে শিশুটির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top