শিরোনাম
  সাংবাদিক মোত্তালিব সরকারের পিতার ইন্তেকাল!       রাজশাহীতে করোনায় আক্রান্ত ২০০, সুস্থ ৫৩       বদলগাছীতে মাঝরাতে বাড়িতে ঢুকে গৃহকর্তাকে হত্যার চেষ্টা আটক ১       রাজশাহীতে ওয়ার্কাস পার্টির সহায়তায় ৬৫০ শ্রমিক পেলেন খাদ্যসামগ্রী       বিসিক শিল্প-মালিক সমিতির সভাপতি লিয়াকত, সম্পাদক মালেক       নাটোরে ভেজাল গুড়ের কারখানায় র‌্যাবের অভিযানে জরিমানা       সাপাহার থানা জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকী প্রদানকারী মিনি আটক       পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগকে করোনার সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করল ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশন       নওগাঁয় বিদ্যুৎস্পৃষ্টের পৃথক ঘটনায় ২ জনের মৃত্যু       স্ত্রীর পা ধরে কান্নাকাটি যুবকের, ছবি ভাইরাল    

আজ শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ১২:৪৬ অপরাহ্

নওগাঁ_প্রতিনিধি : নওগাঁর সাপাহার থানা জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকীদাতা কথিত নারী সন্ত্রাসী তৈবাতুন নেসা মিনিকে (৫০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার নিশ্চিন্তপুর মোড়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

জানা গেছে, উপজেলার মিরাপাড়া দীঘির হাট এলাকার মৃত মহসিন আলীর ছেলে মোকাদ্দেস আলী মিরাপাড়া মৌজায় প্রায় ৩ একর সম্পত্তি ক্রয় করে দীর্ঘ ৪৩ বছর ধরে ভোগদখল করে আসছিল।

সম্প্রতি পার্শ্ববর্তী আদলপুর গ্রামের মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে রিয়াজ উদ্দীন আহম্মেদ উক্ত সম্পত্তির মধ্য হতে ৪১ শতাংশ জমি কথিত জাল দলিল তৈরী করে জবর দখলের পায়তারা শুরু করে।

এক পর্যায়ে মিরাপাড়া গ্রামের আকলিমা খাতুন(৫২) ও নিশ্চিন্তপুর মোড়ের বাসিন্দা তৈবাতুন নেসা মিনিকে ভাড়াটিয়া হিসেবে নিযুক্ত করে ওই জমি জবর দখলের জোর চেষ্টা চালাতে থাকে।

বৃহস্পতিবার রিয়াজ তার অন্যান্য সহযোগী ও নারী সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে তাদের সহযোগীতায় ওই জমির উপর একটি টিনের বেড়া দিয়ে অস্থায়ী ঘর তৈরী করে সেখানে অবস্থান নেয়।

এসময় জমির মালিক মোকাদ্দেস আলী ও তার লোকজন সেখানে গিয়ে তাদের বাঁধা দিলে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জমি জবরদখলকারী রিয়াজ(৫৫) ও তার ছেলে আসাদুল(২৪) কে আটক করে।

এদিকে দখলদার বাবা-ছেলেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসায় মনি থানার সরকারী মোবাইলে কল দিয়ে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জকে হুমকি প্রদান করে বলে ‘ভাই- আমার রিয়াজ ভাই ও তার ছেলেকে ধরে নিয়ে গেলো, এদেরকে আপনি চালান দিবেন না।

ওদেরকে চালান দিলে কিন্তু আমি থানায় আগুন লাগিয়ে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দিবো’। এ কথা শোনার পর থানার অফিসার ইনচার্জ পুলিশের একটি টিম পাঠিয়ে হুমকিদাতা মিনিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এসময় দখলদার বাহিনীর অন্যতম নারী সদস্য আকলিমা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়।

সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, ঘটনায় অজ্ঞাতনামাসহ ২১ জনকে আসামী করে থানায় একটি নিয়মিত মামলা দায়ের হয়েছে।

আটক নারী তৈবাতুন নেসা মিনিকে শুক্রবার জেল হাজতে পাঠানো হয়। এদিকে জাল দলিল তৈরী করে ভ‚মিদস্যু রিয়াজ উদ্দীন আহম্মেদ মূল্যবান ওই সম্পত্তি আত্মসাৎ করার জোর চেষ্টায় লিপ্ত ছিলেন বলে স্বীকার করেন।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top