শিরোনাম
  সাংবাদিক মোত্তালিব সরকারের পিতার ইন্তেকাল!       রাজশাহীতে করোনায় আক্রান্ত ২০০, সুস্থ ৫৩       বদলগাছীতে মাঝরাতে বাড়িতে ঢুকে গৃহকর্তাকে হত্যার চেষ্টা আটক ১       রাজশাহীতে ওয়ার্কাস পার্টির সহায়তায় ৬৫০ শ্রমিক পেলেন খাদ্যসামগ্রী       বিসিক শিল্প-মালিক সমিতির সভাপতি লিয়াকত, সম্পাদক মালেক       নাটোরে ভেজাল গুড়ের কারখানায় র‌্যাবের অভিযানে জরিমানা       সাপাহার থানা জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকী প্রদানকারী মিনি আটক       পুলিশ ও স্বাস্থ্য বিভাগকে করোনার সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করল ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশন       নওগাঁয় বিদ্যুৎস্পৃষ্টের পৃথক ঘটনায় ২ জনের মৃত্যু       স্ত্রীর পা ধরে কান্নাকাটি যুবকের, ছবি ভাইরাল    

আজ মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ০২:২২ পূর্বাহ্ন

গুইমারা প্রতিনিধি :

বর্ণাঢ্য আয়োজন ও ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলায় পালিত হয়েছে ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তির ২২ বছর পূর্তি। ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তির বর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে সকাল ৯টায় গুইমারা স্কুল মাঠ থেকে বর্ণাঢ্য র্যালি ও শোভাযাত্রা বের হয়।

এর উদ্বোধন করেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার উদ্ভোধন করেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহরিয়ার জামান। বর্ণাঢ্য র্যালি ও শোভাযাত্রাটি গুইমারা উপজেলার প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে গুইমারা রিজিয়ন মাঠে গিয়ে শেষ হয়।

এতে গুইমারা, রামগড়,মানিকছড়ি,মাটিরাঙ্গার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও সেনাবাহিনী, বিজিবি, পুলিশ এবং আনসার বাহিনীর উধ্বতন কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেয়। ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তির ২২ বছর পূতি উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র্যালি ও শোভাযাত্রার পর গুইমারা রিজিয়ন মাঠে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী গুইমারা রিজিয়ন এর উদ্যেগে আয়োজিত আলোচনা সভা বেলুন ও শান্তির প্রতিক পায়রা উড়িয়ে শুরু করা হয়।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহরিয়ার জামান, বিজিবি’র গুইমারা সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল মোঃ আবুদল হাই, সিন্দুকছড়ি জোন অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল রুবায়েত মাহমুদ হাসিব, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তুষার আহামেদ, গুইমারা সদর ইউপি চেয়ারম্যান মেমং মারমা প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, জাতীর জনকের কণ্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পার্বত্য শান্তি চুক্তির মাধ্যমে পার্বত্য এলাকার মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করেছেন। এই চুক্তির মাধ্যমে পাহাড়ে চলা দীর্ঘ দিনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের অবসান ঘটেছে। নিরাপত্তাই হচ্ছে একটি দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির অংশ। শান্তি চুক্তির মাধ্যমে পার্বত্য এলাকার মানুষের নিরাপত্তার সাথে সাথে এই এলাকা উন্নতি ও অগ্রগতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

0Shares

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top