শিরোনাম

আজ শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:৫২ পূর্বাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক :

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্যকে রাতের অন্ধকারে বোরকা পরে পালাতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির চাকরি যায় না। অবশেষে ছাত্রদের আন্দোলনের মুখে রাতের আঁধারে তিনি পালিয়ে যান। অপেক্ষা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকেও রাতের অন্ধকারে বোরকা পরে পালাতে হবে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নাগরিক ছাত্র ঐক্য আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, শিক্ষকের মর্যাদা আজ ভূলুণ্ঠিত। জাবি ভিসির বিরুদ্ধে অভিযোগ নতুন কিছু নয়। বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় লেখা হয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ১ কোটি ৬০ লাখ টাকা ছাত্রলীগের মধ্যে বিলিয়েছেন। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত ভিসিরা কী ভিসি নাকি ওসি?
যে ভিসি ঠিকাদারের মতো লুটপাটের টাকা বিতরণ করেন সেই ভিসির অধীনে শিক্ষার্থীরা কীভাবে শিক্ষা গ্রহণ করবেন এমন প্রশ্ন রেখে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক বলেন, জাবি ভিসি বলেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল অভ্যুত্থান ঘটেছে। অভ্যুত্থানের অর্থ কী, তিনি সেটা জানেন না। অভ্যুত্থান উনি দেখেননি। তার চেয়ে বড় কথা হচ্ছে জনতার গণ-অভ্যুত্থানকে তিনি অপমান করেছেন। কয়েকটি গুণ্ডা দিয়ে ছাত্র ও শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি যদি বলেন এটা গণঅভ্যুত্থান হয়েছে, তাহলে এর চেয়ে বড় লজ্জার কিছু আর হয় না।’

মান্না বলেন, সরকার এখন বলে বেড়াচ্ছেন তারা দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করছেন। প্রকৃত শুদ্ধি অভিযান করলে প্রথমেই তো জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির চাকরি যাওয়া উচিত।

মানববন্ধনে আরও বক্তব্য রাখেন নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মমিনুল ইসলাম, ছাত্র ঐক্যের আহবায়ক সাকিব হাসান, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য শাওন রহমান, তরিকুল ইসলাম প্রমুখ।

Share on Facebook Share on Twitter

আরও পড়ুন