শিরোনাম

আজ রবিবার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ০৩:৫৪ অপরাহ্

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :হবিগঞ্জ সদর উপজেলার গোপায়া ইউনিয়নের টুক ভাদৈ গ্রামে কদর আলী শাহ্ (৫০) নামে কথিত ভূয়া কবিরাজের সন্ধান পাওয়া গেছে। সে জেলার বিভিন্ন গ্রামের সহজ সরল মানুষকে ধোকা দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সে তাবিজ, কবজ ও পানি, তেল পড়ার নামে গত ১১ বছর ধরে এ ব্যবসার সাথে জড়িত থাকলেও তার বিরুদ্ধে অজ্ঞাত কারণে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না।তার আন্তানায় প্রতি শনিবার ও

মঙ্গলবার জ্বীনের মাধ্যমে জযাব,সওয়ালের নাম করে হাদিয়া নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। তার হাদিয়ার রকমভেদও রয়েছে। সে কোনো কোনো রোগীর নিকট থেকে ৫শ থেকে ২০হাজার টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিচ্ছে।এক সময়ে সে পাগল বেশে আজমির শরিফে ছিল এর পর থেকে সে দেশে ফিরে গত ১১ বছর যাবত এ ব্যবসা করে লাখ লাখ টাকার মালিক হয়ে গেছে এবং সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করছে। খবর নিয়ে জানা গেছে, ইসলামি শিক্ষায় তার নূন্যতম যোগ্যতাও নেই। সরেজমিনে তার সাথে আলাপ কালে সে জানায় তার শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই বলে সে স্বীকার করে।তার নিজের নাম ও সে লিখতে পড়তে পারে না।

সে ১১ বছর আগে এক লোকের কাছ থেকে একটি তাবিজের বই সংগ্রহ করে তিনি হাত দেখা থেকে শুরু করে ঠুকঠাক তাবিজ ও পানিপড়ার মাধ্যমে তার ব্যবসা খোলে বসেন। গত ১১ বছরে তার ব্যবসার ডালপালা বেড়েছে। এখন দেশে বিদেশের রোগি প্রতিদিন তিনি দেখেন।২৫ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে তার আস্তানায় গিয়ে দেখা যায়, তার আসনের উপর সাজানোর রয়েছে বিভিন্ন গাছের চাল, ডাল,জড়, হরিণের চামড়া। মাটিতে পড়ে থাকা ওষধী অপরিচ্ছন্ন বোতল। তার কাছে রাসানিক মিশ্রিত ক্যামিকেলর বোতল ও রয়েছে। যেগুলো ব্যবহারে মানুষের ক্ষতি সাধন হতে পারে।এক কথায় বলতে গেলে তিনি জ্বীনের মাধ্যমে জওয়াব সওয়ালের পাশাপাশি এখন কবিরাজির চিকিৎসাও খোলে বসেছেন। জওয়াব সওয়ালের সময় তিনি নিজের ইচ্ছেমতো কাগজে হাবিজাবি লেখেন। এসব লিখা আসলে কি, সাধারণ মানুষতো দুরের কথা কোনো আলেমও বুঝবে না।প্রতারণার শিকার হবিগঞ্জের গ্রাম অঞ্চলের সাধারন মানুষ।এক ভুক্তভোগী দম্পতি জানান, তারা কয়েক মাস আগে ছেলে সন্তান না থাকায় তার কাছে গেলে প্রথম রোগী হিসেবে কয়েক হাজার হাতিয়ে নেয়া হয়। এক সপ্তাহ পর মঙ্গলবার যাবার কথা বললে সে ২০ হাজার টাকা দিতে বলে এবং কথা মতো টাকাও দেন এক বছরের ভেতর বাচ্চা হবে বলে জানায়। কিন্তু অদ্যাবদি তার কোনো সন্তান হয়নি।এ বিষয়ে ভুক্তভোগী লোকজন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top