শিরোনাম

আজ শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৯ পূর্বাহ্ন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক  :

সম্প্রতি মার্কিন অভিযানে সিরিয়ায় নিহত জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের নেতা আবু বকর আল বাগদাদির এক স্ত্রীকে আটক করেছে তুরস্ক। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান বুধবার এই খবর জানিয়েছেন। এছাড়া বাগদাদির বোন ও জামাতা ও তাদের পুত্রবধূকেও আটক করেছে তুরস্ক কর্তৃপক্ষ।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদন অনুযায়ী, এরদোয়ান বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র বলছে টানেলে বাগদাদি আত্মহনন করেছেন। আমি এখন প্রথমবারের মতো ঘোষণা করছি, আমরা তার স্ত্রীকে আটক করেছি। কিন্তু আমরা তাদের (যুক্তরাষ্ট্রের) মতো এ নিয়ে গলাবাজি করছি না।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট আরও জানান, ‘আমরা সিরিয়া থেকে একইসঙ্গে বাগদাদির বোন ও জামাতাকেও আটক করেছি। বুধবার আঙ্কারা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক বক্তৃতায় তিনি এই ঘোষণা দেন। তবে এ নিয়ে আর কোনো বিস্তারিত তথ্য জানাননি এরদোয়ান।’

তুরস্কের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এর আগে জানান, তুরস্ক বাগদাদির বোন ও তার স্বামী এবং পুত্রবধূকেও আটক করেছে। আর এর মাধ্যমে তারা ইসলামিক স্টেট সম্পর্কে আরও গোপন তথ্য উদ্ধার করতে সক্ষম হবে। তবে আঙ্কারা সংগঠনির কার্যক্রম সম্পর্কে তাদের হাতে আসা কোনো এখনো জানায়নি।

বিশ্বের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর গোষ্ঠী আইএসের ছদ্মবেশধারী নেতা আবু বকর আল বাগদাদি দলটির প্রধানের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি নিজেকে গোটা বিশ্বের সকল মুসলিমের খলিফা হিসেবে ঘোষণা করে। মার্কিন জোটের কাছে অনেকটা পরাভূত হওয়ার আগে ইরাক ও সিরিয়ার বিস্তীর্ণ অঞ্চল দখলে নেয় আইএস।

সম্প্রতি মার্কিন ‘এলিট বাহিনী’র বিশেষ অভিযানে বাগদাদি নিহত হওয়ায় গোটা বিশ্ব এর প্রশংসা করে। তবে নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা সতর্ক করে বলেছে বাগদাদির মৃত্যু হলেও আইএসে এখনো বিশ্বের জন্য ভয়ঙ্কর এক সশস্ত্রগোষ্ঠী। তারা সিরিয়া এবং বিশ্বের যেকোনো অঞ্চলে হামলা চালানোর ক্ষমতা রাখে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বাগদাদি নিহত হওয়ার পর বলেছিলেন ওই অভিযানে তার দুজন স্ত্রীও নিহত হয়েছেন। বাগদাদির মৃত্যুর সত্যতা নিশ্চিত করে কয়েকদিন আগে আইএস তাদের নতুন নেতা হিসেবে আবু ইব্রাহীম আল-হাশেমি আল-কুরেইশির না ঘোষণা করেছে।

Share on Facebook Share on Twitter

আরও পড়ুন