শিরোনাম
  গোলাপি বলে মানিয়ে নিতে মিরাজদের কঠোর পরিশ্রম       অনুদানের চলচ্চিত্র ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া’র যাত্রা হলো শুরু       বাঘ উদ্ধারের গল্প       তারেক রহমান ডিজিটাল দেশ গড়ার কাজ শুরু করেন : ফখরুল       শোভন-রাব্বানী ও ৫ এমপিসহ ১০৫ জনের সম্পদের অনুসন্ধানে দুদক       বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী : ৫৪ স্থানে বসছে ক্ষণ গণনার ডিসপ্লে       লিবিয়ায় বিমান হামলায় বাংলাদেশি নিহত, আহত ১৫       পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৭০ টাকা       চট্টগ্রামে’র নগরীর হালিশহর এইচ ব্লকে নর্দমার পাশ থেকে নবজাতক উদ্ধার       অনিয়ম-দূর্নীতির আখড়া, সেবাপ্রার্থীদের দূর্ভোগ : বিআরটিএ অফিসে জেলা প্রশাসকের ঝটিকা অভিযান,  ২ দালালকে কারাদন্ড    

আজ মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:০৭ অপরাহ্

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: পেঁয়াজের বাজার ভারতের নিয়ন্ত্রণে থাকায় দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর সোনামসজিদে পেঁয়াজের দাম অস্থিতিশীল অবস্থা বিরাজ করছে। এতে করে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা দাম পড়ে যাওয়ার ভয়ে আমদানি কমিয়ে দিয়েছে।

এদিকে, বন্দরে গত শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) থেকে এলসি ভ্যালু বেড়ে ৮৫২ ডলার নির্ধারিত হওয়ায় পেঁয়াজের আমদানি ব্যয় বেড়ে গেছে। এতে করে বন্দরে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম পড়ছে ৭৩ টাকা করে। এলসি ভ্যালুর প্রভাবে গত শনিবার ১৫টি, রোববার ৩৪টি পেঁয়াজ ভর্তি ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করায় পেঁয়াজের দাম ৩৬-৪০ টাকা থেকে বেড়ে ৫৫-৬০ টাকায় বৃদ্ধি পায়। তবে রোববার ভারত থেকে ৮৬টি পেঁয়াজের ট্রাক বন্দরে প্রবেশ করায় সোমবার পেয়াঁজের দাম কেজি প্রতি ১০ টাকা কমে যায়।

খাদিজা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকার আজিজুল ইসলাম বলেন, পেঁয়াজের সরবরাহ ঠিক থাকলে দাম বাড়বে না। কিন্তু পেঁয়াজের বাজার ভারতীয়রা নিয়ন্ত্রণ করায় এবং আকস্মিকভাবে রপ্তানি কমিয়ে দেওয়ায় বাংলাদেশে দাম অস্থিতিশীল থাকছে। এতে করে ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ আমদানিতে লসের আশঙ্কায় আতঙ্কিত থাকছেন। পাশাপাশি আগের দেওয়া এলসিগুলোর বিপরীতে ভারতের কাস্টমস কর্তৃপক্ষ পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি না দেওয়ায় বিপাকে পড়েছে পেঁয়াজ আমদানিকারকরা।

পেঁয়াজ আমদানিকারকরা জানান, আগে ৩০০ ইউএস ডলারে প্রতি টন পেঁয়াজ আমদানি হলেও শনিবার থেকে প্রতি মেট্রিকটন পেঁয়াজ ৮৫২ মার্কিন ডলারে আমদানি করতে হবে বলে জানায় ভারতীয় কৃষিপণ্য মূল্য নির্ধারণকারী সংস্থ্যা ‘ন্যাপিড’। তবে আগের এলসি করা পেঁয়াজ নতুন রেটের পেঁয়াজের সঙ্গে সমন্বয় করে আমদানি করার সুযোগ দেওয়া হবে বলে জানায় ভারতীয় ওই সংস্থাটি।

এদিকে, স্থানীয় পেঁয়াজ বিক্রেতারা জানান, রপ্তানিমূল্য বাড়িয়ে দেওয়ায় দেশের মধ্যে প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। গত সপ্তাহে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বন্দরে প্রতিকেজি পেঁয়াজ ৩৬-৪০ টাকা পাইকারি মূল্যে কিনলেও সে পেয়াঁজ রোববার বেড়ে হয় ৫৫-৬০ টাকা। এতে করে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাজারেও প্রভাব পড়েছে আমাদানি করা পেঁয়াজের দাম। জেলার অধিকাংশ হাট বাজারে খুচরা পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০-৭৫ টাকা কেজি দরে। তবে বন্দরে রোববার আমদানিকরা পেয়াঁজের দাম কেজি প্রতি ১০ টাকা কমার দাবি করলেও খুচরা বাজারে এর কোনো প্রভাব পড়েনি।

শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) ভারত এলসি ভ্যালু বাড়িয়ে দেওয়ার আগে গত সপ্তাহের শেষ তিন দিনে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ১৮৯ ট্রাক ভর্তি পেঁয়াজ আমদানি হয় বলে জানান সোনামসজিদ স্থলবন্দর পানামা পোর্ট লিঙ্কের ডেপুটি পোর্ট ম্যানেজার মাইনুল ইসলাম।

 
 
 

আরও পড়ুন

 

Top